শনিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭ || সময়- ১২:৫৯ am
বয়স কমায় তামার ব্রেসলেট!
বৃহস্পতিবার ৬ জুলাই ২০১৭ , ১০:১৯ am
তামার ব্রেসলেট.jpg

স্বাস্থ্য ডেস্ক
ঢাকা:
শরীরকে সুস্থ রাখতে তামার কোনও বিকল্প হয় না বললেই চলে। তামার অলংকার পরার রেওয়াজ বহু যুগ ধরে চলে আসছে আমাদের দেশে। তবে তা অনেকটাই সৌন্দর্যের অঙ্গ হিসেবেই বিবেচিত হয়ে থাকে। কিন্তু আমাদের জানা নেই যে এই অলঙ্কারটির অন্য অনেক গুণও আছে। যেমন বেশ কিছু রোগের উপশমে এই ধাতুটি দারুন কাজে আসে।

১. অর্থ্রাইটিসের প্রকোপ কমায়: যারা অস্টিওপোরোসিস অথবা আর্থ্রাইটিসের মতো রোগে ভুগছেন তাদের প্রায়ই কব্জিতে যন্ত্রণা এবং অস্বস্তি হওয়ার মতো লক্ষণের বহিঃপ্রকাশ ঘটে থাকে। এক্ষেত্রে তামার অলংকার কাজে লাগাতে পারেন। কারণ এই ধরনের কষ্ট কমাতে এই ধাতুটির কোনও বিকল্প হয় না বললেই চলে।

২. ব্যথা কমাতে সাহায্য করে: তামায় উপস্থিত অ্যান্টি-ইনফ্লেমটরি উপাদান ত্বক ভেদ করে শরীরের ভিতর প্রবেশ করা মাত্র যন্ত্রণা কমতে শুরু করে দেয়। তাই যারা প্রায়ই যন্ত্রণায় কাবু হয়ে পরেন তারা আজ থেকেই তামার অলংকার পরা শুরু করুন। দেখবেন দারুন উপকার পাবেন।

৩. খনিজের অভাব দূর করে: একাধিক গবেষণা চলাকালীন সময় লক্ষ করে দেখা গেছে ঘামের সঙ্গে তামার অলংকারে উপস্থিত একাধিক ধাতু, বিশেষত জিঙ্ক এবং আয়রন শরীরে প্রবেশ করতে শুরু করে। ফলে এই দুই খনিজের ঘাটতি দূর হয়। সেই সঙ্গে ক্ষিদে কমে যাওয়া, ক্লান্তি, রক্তাল্পতা, চুল পরে যাওয়া এবং বন্ধ্যাত্বের মতো রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কাও হ্রাস পায়।

৪. শরীরের বয়স বাড়ে না: তামায় উপস্থিত অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট শরীরের বয়স বাড়ার প্রক্রিয়াকে দুর্বল করে দেয়। ফলে বয়স বাড়লেও শরীরে তার কোনও ছাপই পরে না।

৫. অন্যান্য উপকারিতা: তামার আরও বেশ কিছু গুণ রয়েছে। যেমন শরীরে টক্সিক উপাদানের মাত্রা যাতে বৃদ্ধি না পায় সেদিকে খেয়াল রাখে। সেই সঙ্গে অ্যানিমিয়ার মতো রোগের প্রকোপও দূর করে। আসলে তামায় উপস্থিত আয়রন হিমোগ্লোবিনের মাত্রা বাড়িয়ে দেয়। ফলে রক্তাল্পতা বা অ্যানিমিয়ার মতো রোগ ধীরে ধীরে কমতে শুরু করে।-সূত্রঃ বোল্ডস্কাই।
বয়স কমায় তামার ব্রেসলেট! ফাতেমা তুজ জোহুরা বয়স কমায় তামার ব্রেসলেট! শরীরকে সুস্থ রাখতে তামার কোনও বিকল্প হয় না বললেই চলে। তামার অলংকার পরার রেওয়াজ বহু যুগ ধরে চলে আসছে আমাদের দেশে। তবে তা অনেকটাই সৌন্দর্যের অঙ্গ হিসেবেই বিবেচিত হয়ে থাকে। কিন্তু আমাদের জানা নেই যে এই অলঙ্কারটির অন্য অনেক গুণও আছে। যেমন বেশ কিছু রোগের উপশমে এই ধাতুটি দারুন কাজে আসে। ১. অর্থ্রাইটিসের প্রকোপ কমায়: যারা অস্টিওপোরোসিস অথবা আর্থ্রাইটিসের মতো রোগে ভুগছেন তাদের প্রায়ই কব্জিতে যন্ত্রণা এবং অস্বস্তি হওয়ার মতো লক্ষণের বহিঃপ্রকাশ ঘটে থাকে। এক্ষেত্রে তামার অলংকার কাজে লাগাতে পারেন। কারণ এই ধরনের কষ্ট কমাতে এই ধাতুটির কোনও বিকল্প হয় না বললেই চলে। ২. ব্যথা কমাতে সাহায্য করে: তামায় উপস্থিত অ্যান্টি-ইনফ্লেমটরি উপাদান ত্বক ভেদ করে শরীরের ভিতর প্রবেশ করা মাত্র যন্ত্রণা কমতে শুরু করে দেয়। তাই যারা প্রায়ই যন্ত্রণায় কাবু হয়ে পরেন তারা আজ থেকেই তামার অলংকার পরা শুরু করুন। দেখবেন দারুন উপকার পাবেন। ৩. খনিজের অভাব দূর করে: একাধিক গবেষণা চলাকালীন সময় লক্ষ করে দেখা গেছে ঘামের সঙ্গে তামার অলংকারে উপস্থিত একাধিক ধাতু, বিশেষত জিঙ্ক এবং আয়রন শরীরে প্রবেশ করতে শুরু করে। ফলে এই দুই খনিজের ঘাটতি দূর হয়। সেই সঙ্গে ক্ষিদে কমে যাওয়া, ক্লান্তি, রক্তাল্পতা, চুল পরে যাওয়া এবং বন্ধ্যাত্বের মতো রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কাও হ্রাস পায়। ৪. শরীরের বয়স বাড়ে না: তামায় উপস্থিত অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট শরীরের বয়স বাড়ার প্রক্রিয়াকে দুর্বল করে দেয়। ফলে বয়স বাড়লেও শরীরে তার কোনও ছাপই পরে না। ৫. অন্যান্য উপকারিতা: তামার আরও বেশ কিছু গুণ রয়েছে। যেমন শরীরে টক্সিক উপাদানের মাত্রা যাতে বৃদ্ধি না পায় সেদিকে খেয়াল রাখে। সেই সঙ্গে অ্যানিমিয়ার মতো রোগের প্রকোপও দূর করে। আসলে তামায় উপস্থিত আয়রন হিমোগ্লোবিনের মাত্রা বাড়িয়ে দেয়। ফলে রক্তাল্পতা বা অ্যানিমিয়ার মতো রোগ ধীরে ধীরে কমতে শুরু করে।


-সূত্র : বোল্ডস্কাই

 

প্রহরনিউজ/স্বাস্থ্য/তাজ/৬ জুলাই, ২০১৭