বৃহস্পতিবার ২৩ নভেম্বর ২০১৭ || সময়- ৫:৫২ pm
হরি ধানের হরিপদ আর নেই
বৃহস্পতিবার ৬ জুলাই ২০১৭ , ৩:৪৪ pm
hori kapali dead pic.jpg

জাহিদুর রহমান তারিক, ঝিনাইদহ
ঢাকা: বাংলাদেশে সাড়া জাগানো হরি ধানের আবিষ্কারক হরিপদ কাপালী আর নেই। ঝিনাইদহের এই মডেল কৃষক বুধবার মধ্য রাতে আসাননগর গ্রামে বার্ধক্যজনিত কারণে পরলোক গমন করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৯৫ বছর। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি নিঃসন্তান ছিলেন। গত ছয় মাস ধরে তিনি বিছানায় শয্যাশায়ী ছিলেন। তার মৃত্যুর খবর পেয়ে মিডিয়াকর্মী ও কৃষি বিভাগের কর্মকর্তারা ছুটে যান তার বাড়িতে। বৃহস্পতিবার দুপুরে চুয়াডাঙ্গার আলীয়ারপুর শ্বশানে তার অন্তষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন হয়। হরিপদ ১৯২২ সালের ১৭ সেপ্টম্বর ঝিনাইদহ সদর উপজেলার এনায়েতপুর গ্রামে জন্মগ্রহন করেন। জন্মের পরপরই তিনি তার বাবা কুঞ্জু লাল কাপালী ও মা সরোধনীকে হারিয়ে অনাথ হয়ে পড়েন।

কিশোর হরিপদ পরের বাড়িতে কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করতেন। যুবক বয়সে তার পঙ্গু শ্বশুর একমাত্র মেয়ে সুনিতীকে বিয়ে দিয়ে আসাননগর গ্রামে তাকে ঘরজামাই রাখেন। মৃত্যুর আগে বিভিন্ন পত্রপত্রিকা, বেসরকারী টিভি চ্যানেল ও বিবিসির কাছে দেওয়া সাক্ষাতকারে কৃষক হরিপদ এই ধান উদ্ভাবনের বিষয়ে জানিয়েছিলেন, তার ইরি ধান ক্ষেতে একটি ব্যতিক্রমধর্মী ধান গাছ দেখে তিনি সেটাকে আলাদা করে রাখেন। এরপর বীজ সংগ্রহ করে তিনি নিজের ক্ষেতেই ১৯৯২ সালে আবাদ করে সুফল পান।

এরপর এই ধানের আবাদ সারা দেশেই ছড়িয়ে পড়ে। এলাকার কৃষকরা বীজ সংগ্রহ করে ইরি ও বোরো মৌসুমে আবাদ করতে থাকেন। বাংলাদেশের বিভিন্ন কৃষি সংগঠন তাকে সম্মাননা ও এওয়ার্ড প্রদান করেন। নবম ও দশম শ্রেণির কৃষি শিক্ষা বইতে হরিপদ কাপালীর নাম উঠে আসে। ঝিনাইদহ কৃষি বিভাগ সুত্রে জানা গেছে, ১৯৯৪ সালের দিকে ঝিনাইদহসহ দক্ষিনাঞ্চলের জেলাগুলোতে নাম পরিচয় বিহীন এক জাতের ধানের ব্যাপক আবাদ ছড়িয়ে পড়ে। ১৯৯৫ সালে ঝিনাইদহের সিনিয়র জৈনিক সাংবাদিক এই ধান চাষের উপর আঞ্চলিক ও জাতীয় দৈনিকে একটি বিশেষ প্রতিবেদন প্রকাশ করেন।

১৯৯৬ সালে চ্যানেল আই এর বার্তা প্রধান শাইখ সিরাজ ঝিনাইদহে এসে হরি ধানের উপর সচিত্র প্রতিবেদন প্রচার করলে দেশব্যাপী হৈচৈ পড়ে যায়। পোকামাকড়, ক্ষরা ও অতিবৃষ্টি সহিষ্ণু এই জাতের ধান চাষে কৃষকদের আগ্রহ দেখে ধান গবেষনা ইনষ্টিটিউট পরীক্ষা নিরিক্ষা করে বিশেষ ধরনের এই জাতের ধান চাষের উপর ছাড়পত্র প্রদান করে। এদিকে কৃষক হরিপদ কাপালীর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন, চ্যানেল আই এর বার্তা প্রধান শাইখ সিরাজ।


কোটচাঁদপুরে পাঠাগারের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন
ঝিনাইদহ : অবিসংবাদি সাহিত্য সংঘ ও পাঠাগারের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করলেন কোটচাঁদপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রেজাউল করিম। বুধবার বিকাল ৫টায় তিনি কোটচাঁদপুর উপজেলার ফুলবাড়ী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পাশে এ পাঠাগারের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন উদ্ভোধন করেন। এ সময় জেলা পরিষদের সদস্য শামীম আরা হ্যাপি, বলুহর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মতিন, ফুলবাড়ী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সামসুদ্দিন আহমেদসহ অবিসংবাদি সাহিত্য সংঘের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। এর আগে বিকাল সাড়ে ৪টায় ফুলবাড়ী মাধ্যমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে সাহিত্য কাগজ“হেয়ালী” এর ৫ম বর্ষ’র ১ম সংখ্যার মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি’র বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রেজাউল করিম।

বক্তব্যে তিনি বলেন, সাহিত্য চর্চার মাধ্যমে আমাদের নতুন প্রজন্ম ভালকে অনুসরণ আর মন্দকে ঘৃণা করতে শিখবে। সাহিত্য মানুষের মনের সংকীর্ণতা দুর করে উদার আর সামাজিক হতে শেখায়। এই পত্রিকা ও পাঠাগারের মাধ্যমে এই এলাকার নতুন প্রজন্ম আলোর পথের দিশারী হবে। বলুহর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মতিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, ঝিনাইদহ জেলা পরিষদের সদস্য শামীম আরা হ্যাপি ও ফুলবাড়ী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সামসুদ্দিন আহমেদ।

 

প্রহরনিউজ/জেলার খবর/তাজ/৬ জুলাই, ২০১৭