বুধবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭ || সময়- ১১:৩১ am
নাসরিন আরাফাত সানির স্ত্রী নন!
শনিবার ১৯ আগস্ট ২০১৭ , ২:১০ am
নাসরিন-সানি.jpg

প্রহরনিউজ, ঢাকা: কত জলঘোলা, কত টানাটানি, কত খবর ক্রিকেট আরাফাত সানিকে নিয়ে। কিন্তু কালক্রমে তা ভুল প্রমাণিত হলো! আরাফাত সানি ও তাঁর মায়ের বিরুদ্ধে করা নারী নির্যাতনের মামলার তথ্যগুলো ভুল। ভুল তথ্য দিয়ে ঐ মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করেছে পুলিশ।

গতকাল শুক্রবার ঢাকার অপরাধ, তথ্য ও প্রসিকিউশন বিভাগের উপকমিশনার আনিসুর রহমান গণমাধ্যমকে বিষয়টি জানিয়েছেন।

গণমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে আনিসুর জানান, ‘গত বৃহস্পতিবার রাতে ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের সাধারণ নিবন্ধন শাখায় চূড়ান্ত এই প্রতিবেদন দাখিল করা হয়েছে।’

এ বিষয়ে সানির আইনজীবী এম জুয়েল আহমেদ জানান, সানি ও তার মায়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হয়নি বলে মোহাম্মদপুর থানা পুলিশের উপপরিদর্শক মোহাম্মদ ইয়াহহিয়া এ চূড়ান্ত প্রতিবেদন দিয়েছেন।

সংশ্লিষ্ট আদালতের সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা (জিআরও) হরলাল মল্লিক বলেন, ‘চূড়ান্ত প্রতিবেদন আসায় মামলাটি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে পাঠানো হবে। সেখানেই মামলার বাকি কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হবে।’

মামলা প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, আরাফাত সানির সঙ্গে মামলার বাদীর যে বিবাহ ও কাবিন হয়েছে, তার কোনো সত্যতা পাওয়া যায়নি। সানি ও নাসরিনের রেস্তোরাঁয় বিয়ে হয়েছে বলেও কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি। সানির মা নার্গিস সুলতানা লোকজনকে নিয়ে মামলার বাদীকে মারধর করেছেন বলে যে অভিযোগ আছে, তারও কোনো সাক্ষ্য-প্রমাণ পাওয়া যায়নি।

জাতীয় দলের ক্রিকেটার আরাফাত সানির বিরুদ্ধে গোপনে বিয়ে করেও কালক্ষেপণ এবং ভুয়া অ্যাকাউন্ট খুলে নিজের অন্তরঙ্গ ছবি আপলোড করার অভিযোগ এনে তথ্য প্রযুক্তি আইনে মামলা দায়ের করেছিলেন নাসরিন। রাজধানীর মোহাম্মদপুর থানায় গত ৫ জানুয়ারি ওই তরুণীর দায়ের করা জিডিকে তথ্য প্রযুক্তি আইনের মামলা হিসেবে গ্রহণ করেছিলো পুলিশ।

মামলায় নাসরিন নামের ঐ তরুণী অভিযোগ করেছিলেন, ২০১৪ সালের ১২ ডিসেম্বরে ক্রিকেটার আরাফাত সানির সঙ্গে ৫ লাখ এক টাকা দেনমোহরে নাসরিন সুলতানার বিয়ে হয়। বিয়ের ছয় মাস পর ক্রিকেটার আরাফাত সানি নাসরিনের কাছে ২০ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন। গত ১ ফেব্রুয়ারি ঢাকার ৪নং নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে যৌতুকের জন্য মারধরের অভিযোগে ক্রিকেটার আরাফাত সানি ও মা নার্গিস আক্তারের বিরুদ্ধে মামলা করেন সানির স্ত্রী দাবিদার নাসরিন সুলতানা। আদালত মামলাটি এজাহার হিসেবে নেয়ার জন্য মোহাম্মদপুর থানাকে নির্দেশ দেন এবং গত ৮ ফেব্রুয়ারি মোহাম্মদপুর থানা মামলাটি এজাহার হিসাবে রেকর্ড করেন।

এর আগে তথ্য-প্রযুক্তি আইনে নার্গিসের দায়ের করা মামলায় গত ২২ জানুয়ারি সকালে ঢাকার আমিনবাজার এলাকা থেকে সানিকে গ্রেফতার করা হয়। পরে যৌতুক নিরোধ আইন এবং নারী নির্যাতন আইনে আরও দুটি মামলা করেন নাসরিন। এসব মামলায় জামিনে রয়েছেন জাতীয় ক্রিকেট দলের এই ঘূর্ণি জাদুকর।