বুধবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭ || সময়- ২:৪২ am
প্রধান বিচারপতিকে পাকিস্তান চলে যেতে বললেন হানিফ
মঙ্গলবার ২২ আগস্ট ২০১৭ , ৬:৩১ pm
হানিফ.jpg

প্রহরনিউজ, রাজনীতি: সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায় এবং প্রধান বিচারপতির মন্তব্য নিয়ে ক্ষমতাসীন দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ বলেছেন, পাকিস্তানের ভাবধারা প্রতিষ্ঠিত করতে চাইলে, পাকিস্তানে চলে যান।

মঙ্গলবার রাজধানীতে এক আলোচনা সভায় হানিফ এ কথা বলেন।

হানিফ বলেন, ‘প্রধান বিচারপতি ষোড়শ সংশোধনী নিয়ে রায়ের মধ্যে যে সব অবজারভেশন দিয়েছেন এ নিয়ে আমরা ইতোমধ্যে কথা বলেছি। উনি সংসদকে বলেছেন অকার্যকর, ওনি সংসদকে বলেছেন ইমম্যাচিউরড।’

‘বিচারপতি সাহেব অপনাকে মনে রাখতে হবে, জনগণের দ্বারা নির্বাচিত এই সংসদ, এই সংসদ সদস্যদের দ্বারাই নির্বাচিত রাষ্ট্রপতি। সেই রাষ্ট্রপতিই নিয়োগ দিয়েছেন আপনাকে। সংসদ অযোগ্য হলে আপনাকেও অযোগ্য ভাবছে জনগণ।’

বিচারপতির শপথ ভঙ্গ হয়েছে দাবি করে হানিফ বলেন, ‘আপনি শপথ ভঙ্গ করেছেন, আপনি শপথ নিয়েছিলেন সংবিধানকে সুরক্ষা করার জন্য। আপনি সংসদকে কটাক্ষ করে শপথ ভঙ্গ করেছেন।’

ক্ষমতাসীন দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আরও বলেন, ‘আর এই শপথ ভঙ্গ করার কারণে গোটা বিচার বিভাগকে জনগণের মুখোমুখি করেছেন। আপনি অনেক কথা বলেছেন। সংসদকে কটাক্ষ করে কথা বলেছেন, মুক্তিযুদ্ধের মীমাংসিত বিষয় নিয়ে কথা বলেছেন। আজকে আপনি একটার পর একটা কথা যেভাবে বলে যাচ্ছেন এবং কিছু বিচারপতির কর্মকাণ্ডের কারণে গোটা বিচার ব্যবস্থাকে জনগণের মুখোমুখি দাঁড় করিয়েছেন। এটা আমাদের কখনো কাম্য নয়।’

‘প্রধান বিচারপতি সাহেব, সুপ্রিম জুডিশিয়াল কাউন্সিল একমাত্র পাকিস্তানে আছে। পৃথিবীর আর কোথাও নেই। পাকিস্তানের প্রতি আপনার এত দরদ। ২০১৪ সালে নির্বাচনের সময় আপনি নিজেও বলেছিলেন, আমিতো শান্তি কমিটির সদস্য ছিলাম। এর মাধ্যমে কী বুঝাতে চেয়েছিলেন?’

হানিফ বলেন, ‘বাংলাদেশে যারা রাজাকার, আলবদর, আলসামস, শান্তি কমিটির সদস্য ছিলেন তারা পাকিস্তানের সৈনিক ছিলেন, সেই হিসেবে আপনি নিজেকে পাকিস্তানের সৈনিক ভাবছেন?’

আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, ‘যারা এই বাংলাদেশে থেকে পাকিস্তানের চিন্তা চেতনা বিশ্বাস করে তাদের এদেশে থাকার কোনো নৈতিক অধিকার নাই। আপনার যদি পাকিস্তানের প্রতি এতই আকর্ষণ থাকে তাহলে পাকিস্তানে চলে যান। সে অধিকার আপনার আছে। চলে যান পাকিস্তানে কেউ আপনাকে নিষেধ করবে না।’

‘কিন্তু স্বাধীন বাংলাদেশে বসে পাকিস্তানের ভাবধারা প্রতিষ্ঠা করতে চাইলে বাংলাদেশের জনগণ সেটা মেনে নেবে না। আপনি পাকিস্তানের রেফারেন্স টানেন, এর মধ্য থেকে আপনি কী বুঝাতে চান? আমরা পরিষ্কার ভাবে বলে দিতে চাই, এটা স্বাধীন বাংলাদেশ পাকিস্তান নয়’ বলেন হানিফ।

সরকারকে হুমকি দিয়ে কোনো লাভ নেই উল্লেখ করে হানিফ বলেন, ‘জনগণ একবার জেগে গেলে পালাবার পথ খুঁজে পাবেন না। বিচারপতি তোমার বিচার করবে এবার জনতা। আপনি নৈতিকভাবে এই পদে থাকার অধিকার হারিয়েছেন, জনগণ আপনাকে এই জায়গায় আর দেখতে চায় না।’

কান্নাকাটির জন্য অপেক্ষা করুন

জাতীয় বিদ্যুৎ শ্রমিক লীগের এই আলোচনা সভায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মাহবুবকে উদ্দেশ্য করে হানিফ বলেন, ‘বিএনপি নাকি রাজনীতি করে জনগণের জন্য। কোন মুখে তারা এমন কথা বলে। যেখানে জনগণের ক্ষমতা নিতে চায় হাইকোর্ট সেখানে তারা খুশি হয়। সেই রায়ে তো বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানকেও অবৈধ বলা হয়েছে।’

২১ আগস্ট নিয়ে খন্দকার মাহবুবের বক্তব্যের সমালোচনা করে হানিফ বলেন, নিজেদের অপরাধকে আড়াল করার জন্যই আপনি বলেছেন ২১ আগস্ট নিয়ে কান্নাকাটির কিছু নেই।

হানিফ বলেন, মাহবুব সাহেব আপনাদেরকে বলতে চাই, এর পর কাঁদতে হবে আপনাদের। আদালতের রায়ে যখন আপনাদের লোকেরা অভিযুক্ত হবে তখন আপনাদেরও কাঁদতে হবে। কান্নাকাটির জন্য অপেক্ষা করুন।