বৃহস্পতিবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭ || সময়- ৯:৪৪ pm
মিয়ানমারের নাগরিকত্ব প্রমাণের বহু ডকুমেন্ট রয়েছে রোহিঙ্গাদের
বৃহস্পতিবার ৭ সেপ্টেম্বর ২০১৭ , ১০:০৭ pm
citizen-rohiga

প্রহরনিউজ ডেস্ক : রাখাইনে সেনাবাহিনীর নির্যাতনের শিকার হয়ে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্বের কোনো প্রমাণ বা কাগজ-পত্র না থাকলে তাদের আর ফিরিয়ে নেবে না মিয়ানমার। দেশটির জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা (এনএসএ) বৈঠকে এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়েছে।
 
বুধবার রাতে এক সংবাদ সম্মেলনে মিয়ানমার সরকারের উপদেষ্টা ইউ থাং টুন বলেছেন, যাদের নাগরিকত্বের প্রমাণ নেই তাদের ফিরিয়ে নেয়া হবে না। তাদেরকে এটা অবশ্যই প্রমাণ করতে হবে যে, তারা বহু বছর ধরে মিয়ানমারে বাস করেন। যদি প্রমাণিত হয় তাহলে তারা ফিরে আসতে পারবেন।
 
তিনি দেশের নাগরিকদের আশ্বাস দিয়ে বলেন, আপনাদের নিরাপত্তার কোনো বিঘ্ন হবে না। সরকার প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিচ্ছে।
 
এদিকে, বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, এবার যেসব রোহিঙ্গা পালিয়ে এসেছে তাদের প্রত্যেকের তালিকা করা হয়েছে। তাদের কাছে প্রমাণ করার মতো ডকুমেন্টও রয়েছে।
 
এ প্রসঙ্গে কক্সবাজারে রোহিঙ্গাদের মাঝে চিকিৎসা সেবাদানকারী একজন ডাক্তার জয়নুল আবেদীন জানান, যেসব রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে তাদের কাছে মিয়ানমারের নাগরিকত্ব প্রমাণের মতো অনেক রকম ডকুমেন্ট রয়েছে। যার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে অনেক বছর আগে মিয়ানমার সরকারের দেয়া ন্যাশনাল রেজিট্রেশন কার্ড। এছাড়াও জমিজমার দলিল, স্কুল কলেজে পড়ার সার্টিফিকেট, বিভিন্ন বিল বাবদ সরকারী খাতে টাকা জমা দেবার রশীদ ইত্যাদি প্রমাণ হিসেবে তাদের কাছে রয়েছে।
 
জাতিসংঘের ত্রাণকর্মীরা জানাচ্ছেন, রাখাইন রাজ্যে সহিংসতার শিকার হয়ে এখন পর্যন্ত প্রায় আড়াই লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছেন। এদের মধ্যে অনেকেই আহত-গুলিবিদ্ধ। তাছাড়া পালিয়ে আসার পথে স্থলমাইন বিস্ফোরণেও অনেকে আহত হয়েছেন এবং সমূদ্রপথে নৌকাডুবি হয়ে অনেক রোহিঙ্গা মারা গেছেন।
 
এদিকে, বাংলাদেশ কোনো রকম সংঘাতে না জড়িয়ে মিয়ানমারের সঙ্গে শান্তিপূর্ণ উপায়ে রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধান করতে চায় জীবন বাঁচাতে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয়াসহ রাখাইন রাজ্যের সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠীর দীর্ঘদিনের সমস্যার সমাধানে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সহযোগিতা চেয়েছে বাংলাদেশ।