মঙ্গলবার ২১ নভেম্বর ২০১৭ || সময়- ৬:৩২ pm
কেমন আছেন কর্পোরেট জগতের মধ্যমনি রুবাবা দৌলা
বৃহস্পতিবার ১৯ অক্টোবর ২০১৭ , ৮:৫৪ am
রুবাবা দৌলা.jpg

প্রহরনিউজ, কর্পোরেট: রুবাবা দৌলা মতিন। যিনি শুধু মাত্র রুবাবা দৌলা নামেই বেশী পরিচিত – নানা ভাবে বিতর্কিত – নানা ভাবে সমালোচিত বিভিন্ন মহলে। বাংলাদেশের আকাশে হঠাৎ উদিত এক কর্পোরেট নক্ষত্র। নিজের রূপ ও গ্লামারস্ দিয়ে গ্রামীনফোনের উচ্চপর্যায়ে পৌঁছে নিজেকে নিয়ে গিয়েছিলেন এক অন্য স্তরে।

মিডিয়ার সামনে রুবাবার ফ্যাশনেবল উপস্থিতি বিভিন্ন সময় উসকে দিয়েছে নানা বিতর্ক। ইন্টারনেট ঘাটলেও মিলবে তার বিস্তর।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে গ্রামীন ফোনের চুক্তি থাকাকালীন তাকে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট টুর্নামেন্টেও দেখা যেত ক্যামেরার মধ্যমনি হিসাবে। বাংলাদেশ টেনিস ফেডারেশনের সভাপতির দায়িত্বও পালন করেন দীর্ঘদিন। আসুন তার কিছু সাম্প্রতিক ছবি দেখি। এগুলো এখনো নেটের মাধ্যমে ছড়ানোর সুযোগ পায়নি।

বিভিন্ন সময়ে তিনি এসেছেন আলোচনায়। ২০০৯ সালে গ্রামীনফোনের দায়িত্ব থেকে অব্যহতি নেয়ার আগ পর্যন্ত তাকে নিয়ে মাতামাতি ছিল সবচেয়ে বেশী। পরবর্তীতে সিটি ব্যাংক এন এ তে যোগ দিলে সেটা কমে যায়।

রুবাবা দৌলা এয়ারটেলে চীফ সার্ভিস অফিসার হিসেবে কর্মরত আছেন। রুবাবা দৌলা একসময় গ্রামীণফোনের সাবেক চিফ কমিউনিকেশন্স অফিসার এবং চিফ মার্কেটিং অফিসার হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ১৯৯৮ সাল থেকে গ্রামীণফোনে কর্মরত ছিলেন। ২০০৯ সালের শেষ দিকে তিনি গ্রামীণফোনের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নেন। রুবাবা দৌলার টেলিকম খাতে ১২ বছরেরও বেশি সময় কাজ করার অভিজ্ঞতা রয়েছে।

শিক্ষা : লন্ডন বিজনেস স্কুল, স্ট্রাটেজিক মার্কেটিং প্রোগ্রাম, মার্কেটিং, ২০০৭ – ২০০৮

স্টকহোম স্কুল অফ ইকোনমিক্স : এক্সিকিউটিভ ম্যানেজমেন্ট প্রোগ্রাম, ২০০২ – ২০০২

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় : এমবিএ-মাস্টার অফ বিজনেস স্টাডিজ, মার্কেটিং, ১৯৯৫ – ১৯৯৬

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় : বিবিএ-ব্যাচেলর অফ বিজনেস স্টাডিজ, মার্কেটিং, ১৯৯২ – ১৯৯৫

অভিজ্ঞতা : পরিচালক এবং বোর্ড সদস্য, অটাম হোমস্ লিমিটেড, ২০১০ থেকে বর্তমান (৩ বছর)

প্রেসিডেন্ট এবং ম্যানেজিং পার্টনার এনএক্সও এশিয়া প্যাসিফিক : এনএক্সও স্ট্রাটেজিক মার্কেটিং নেটওয়ার্ক, সেপ্টেম্বর ২০০৯ থেকে আগস্ট ২০১০ (১ বছর)

(সিসিও) চীফ কমিউনিকেশন অফিসার : গ্রামীনফোন লিমিটেড টেলেনর এএসএ (বাংলাদেশের মধ্যে বৃহত্তম টেলিকম কোম্পানি , ২১ মিলিয়ন গ্রাহক), জানুয়ারি ২০০৯ থেকে আগস্ট ২০০৯ (৮ মাস)

পরিচালক – মার্কেটিং : গ্রামীণফোন লিমিটেড, টেলেনর এএসএ, জানুয়ারি ২০০৮ – জানুয়ারি ২০০৯ (১ বছর ১ মাস)

ব্র্যান্ড ও গ্রাহক সেবা বিভাগের প্রধান : গ্রামীনফোন লিমিটেড-টেলেনর এএসএ, ডিসেম্বর ২০০৬ – জানুয়ারি ২০০৮ (১ বছর ২ মাস)

মার্কেটিং অফিসার প্রডাক্ট ডেভেলপমেন্ট এর প্রধান : গ্রামীনফোন লিমিটেড-টেলেনর এএসএ, জানুয়ারি ১৯৯৮ – ডিসেম্বর ২০০৬ (৯ বছর)

বিভিন্ন সংস্থার সদস্য : বাংলাদেশ ব্যাডমিন্টন ফেডারেশনের সভাপতি। বাংলাদেশের জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের নির্বাহী সদস্য। আইস টুডে পত্রিকার কনসাল্টিং সম্পাদক।

সম্মানা ও পুরস্কার : মোবাইল কন্টেন্টে শীর্ষ ৫০ জন নারী, মোবাইল বিনোদন ফোরাম, বেগম রোকেয়া শাইনিং ব্যক্তিত্ব পুরস্কার ২০০৬ সাল

বিশেষ প্রতিভা : প্রথমবারের মতো অ্যালবামের জন্য গান করেছেন রুবাবা দৌলা। প্রযোজনা সংস্থা জি সিরিজের ব্যানারে রিলিজ পেয়েছে তার মিক্সড অ্যালবাম যাবে যদি চল। অ্যালবামটিতে রুবাবা দৌলা মোট দুটি গানে কণ্ঠ দিয়েছেন। এর একটি গানে তিনি এককভাবে কণ্ঠ দিলেও আরেকটি গানে যৌথভাবে কণ্ঠ দিয়েছেন সুরকার গায়ক তাপসের সঙ্গে। পুরো অ্যালবামটির ফিচারিং করেছেন তাপস নিজেই।