বুধবার ২৪ জানুয়ারী ২০১৮ || সময়- ২:৪১ am
ধূমপানে প্রতিবছর ১ লাখ লোকের মৃত্যু!
বৃহস্পতিবার ২৬ অক্টোবর ২০১৭ , ২:৫২ pm
Hookah_576x896.png

প্রহরনিউজ, স্বাস্থ্য: যেসমস্ত বস্তুর ব্যবহার বাদ দিলে অকাল মৃত্যু ঝুঁকি হ্রাস করা যায় তামাক এর মধ্যে শীর্ষে। তামাকের কারণে ফুসফুস ক্যানসার ও স্ট্রোকসহ অন্যান্য দুরারোগ্য ব্যাধিতে বাংলাদেশে প্রতিবছর প্রায় ১ লাখ লোক মারা যায়। তামাকের কারণে বছরে ৩ লাখ ৮২ হাজার মানুষ পঙ্গুত্ব বরণ করে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে সচিবালয়ে ধূমপানের পরোক্ষ ক্ষতি তুলে ধরে নির্মিত ৩০ সেকেন্ডের একটি টিভি স্পটের প্রচারাভিযানের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন শেষে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক এ তথ্য জানান।

তামাক ব্যবহারের ক্ষতিকর প্রভাব তুলে ধরে তিনি আরো বলেন, ‘তামাকের কারণে বাংলাদেশে শতকরা ১৪ দশমিক ৬ ভাগ প্রাপ্তবয়স্ক পুরুষ এবং শতকরা ৫ দশমিক ৭ ভাগ নারীর মৃত্যু ঘটে। আর এই মৃত্যুর সংখ্যা নিম্ন আয়ের দেশগুলোর চেয়েও বেশি। এই অবস্থায় তামাকের ব্যবহার কমাতে সমন্বিত তামাক নিয়ন্ত্রণমালা বাস্তবায়নের বিকল্প নেই। নাহলে তামাকের কারণে মৃত্যুর হার কমানো সম্ভব হবে না, বরং আরো বাড়বে।’ গণসচেতনতার মাধ্যমে তামাকের ব্যবহার কমানো সম্ভব বলেও মনে করেন তিনি।

জাহিদ মালেক বলেন, ‘তামাক থেকে সরকার রাজস্ব খাতে যে আয় করছে তার চেয়ে বেশি খরচ করছে তামাকের কারণে স্বাস্থ্যসেবায়। জিডিপির ৩ শতাংশ তামাকের কারণে অপচয় হয়।’

তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০৪০ সালের মধ্যে ধূমপানমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার ঘোষণা দিয়েছেন। তার সেসব স্বপ্ন পুরণে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। তামাক নিয়ন্ত্রণে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘তামাক নিয়ন্ত্রণে গণসচেতনতার ওপর সরকার জোর দিয়েছে। এজন্য বৃহস্পতিবার থেকে গণমাধ্যমে তামাকের ক্ষতিকর প্রভাব বিষয়ে আমরা প্রচারাভিযান শুরু করলাম।’

তিনি বলেন, ‘আজ থেকে পাঁচ সপ্তাহ টেলিভিশনে ধূমপানবিরোধী বিষ বাতাস নামে ৩০ সেকেন্ডের একটি বিজ্ঞাপন মোট ৫ হাজরবার প্রচার করা হবে।’