রবিবার ২১ জানুয়ারী ২০১৮ || সময়- ১:৫৩ am
বন্ধ গার্মেন্ট খুলে দেয়ার দাবিতে শ্রমিকদের বিক্ষোভ
বুধবার ১ নভেম্বর ২০১৭ , ৫:১২ pm
22853260_10212631995692285_8486094283807248508_n.jpg

ঢাকা: গাজীপুরে অবস্থিত লাক্সমা সোয়েটার কারখানা বেআইনিভাবে বন্ধ করে দেয়ার প্রতিবাদে কারখানার বিপুল সংখ্যক শ্রমিক দেশের গার্মেন্ট শিল্প মালিকদের সমিতি বিজিএমইএ ভবন ঘেরাও করেছে। আজ ১ নভেম্বর ২০১৭ সকাল ১১টায় শ্রমিকরা বিক্ষোভ মিছিল সহকারে বিজিএমইএ ভবন ঘেরাও করে অবস্থান গ্রহণ করে এবং অবিলম্বে কারখানা খুলে দেয়া এবং শ্রমিকদের সকল বকেয়া পরিশোধ করার দাবি জানায়। গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের উদ্যোগে এ ঘেরাও কর্মসূচি পালিত হয়।
কারখানার শ্রমিক মোরসালিন আহমেদের সভাপত্বি এবং শ্রমিকনেতা জালাল হাওলাদারের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত ঘেরাও সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন, সাদেকুর রহমান শামীম, এমএ শাহীন, মঞ্জুর মঈন, মোহাম্মদ শাহীন, রুবেল আহমেদ, মিরাজুল ইসলাম প্রমুখ।
ঘেরাও সমাবেশে বক্তারা বলেন, গাজীপুরসহ সারা দেশে একের পর এক গার্মেন্ট কারখানায় মালিকরা আইন লঙ্ঘন করে শ্রমিকদের পাওনা থেকে বঞ্চিত করছে। অথচ শ্রমিকদের উপর চলমান এসকল জুলুম-নির্যাতন বন্ধে যে সকল সরকারি প্রতিষ্ঠান দায়িত্বপ্রাপ্ত তারা নির্বিকার। শ্রমিকরা এই অবস্থায় আন্দোলনে নামলে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী প্রতিষ্ঠানমূহ শ্রমিকনেতাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ তোলেন। নেতৃবৃন্দ বলেন, দেশের সংবিধান ও আইন বাস্তবায়নের দায়িত্ব যাদের উপর, তারা মালিকদের স্বার্থের পাহারাদারে পরিণত হয়েছে।
নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, গাজীপুরে লাক্সমা সোয়েটার ছাড়াও ডডি ফ্যাশন, টেক্সটেক গার্মেন্ট কারখানাসহ অনেক কারখানায় সম্প্রতি শ্রমিকদের আইনানুগ পাওনা থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে। চালসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের চরম মূল্যবৃদ্ধির কথা উল্লেখ করে বক্তারা সমাবেশ থেকে অবিলম্বে শ্রমিকদের মজুরি বৃদ্ধির দাবি জানান। সমাবেশ থেকে অবিলম্বে লাক্সমা সোয়েটার কারখানা খুলে দিয়ে এগারশ শ্রমিকের তিনমাসের বকেয়া পাওনা পরিশোধ না করা হলে কঠোর আন্দোলন গড়ে তোলার হুশিয়ার উচ্চারণ করা হয়।
পরে বিজিএমএই নেতৃবৃন্দের আহŸানে গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের নেতৃবৃন্দ ও শ্রমিক প্রতিনিধিদের সাথে মালিক সমিতির প্রতিনিধিদের এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভা থেকে সংকট নিরসনে মালিক সমিতি চারদিনের সময় চাইলে ঘেরাও প্রত্যাহার করা হয়।
সমাবেশ থেকে আগামী সোমবার পর্যন্ত প্রতিদিন কারখানা গেটে সমবেত হয়ে দিনব্যাপী বিক্ষোভ কর্মসূচি পালনের ঘোষণা দেয়া হয়। এর মধ্যে মালিক সমিতি প্রতিশ্রæতি অনুযায়ী সংকট সমাধানে উদ্যোগী না হলে কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে বলে নেতৃবৃন্দ ঘোষণা করেন।
সমাবেশে আরো উপস্থিত ছিলেন গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের কেন্দ্রীয় নেতা দুলাল সাহা, কেএম মিন্টু, জয়নাল আবেদীন প্রমুখ।